শনিবার, ৪ অক্টোবর, ২০০৮

নিকনবীর অন্তর্ধান ও আমারব্লগের ভবিষ্যত

আগের পোস্টে হযরত মুহম্মদ নিকধারী এক ব্লগারের কথা লিখেছিলাম। আমার ধারণা ছিল আমারব্লগ কর্তৃপক্ষ তাকে ব্যান করেছেন। পরে জানা গেল তাকে ব্যান করা হয় নাই, নিজেই তিনি "প্রাইভেট" বলয়ে চলে গেছেন। আজকে সকালে উঠে দেখলাম ইনি আর নাই। শূন্য ভিটায় চোরছ্যাচ্চড়দের বিড়ির পাছা পড়ে আছে।

এই অন্তর্ধানের রহস্য কি? মনে রাখতে হবে গতকাল প্রতিবাদী ব্লগাররা যখন দলে দলে আমারব্লগ ছাড়ছিলেন, তখনো নিকনবী বুক ফুলিয়ে বহাল তবিয়তে তার ভিটাবাড়িতেই ছিলেন। অর্থাৎ তাদের প্রস্থানে নিকনবী এবং তার উম্মতরা ভয়ের কিছু দেখেন নি। হয়ত আরামই পেয়েছিলেন। হয়ত এটাই তাদের উদ্দেশ্য ছিল।

কিন্তু মডারেশনহীন আমারব্লগের কারিগরদের জন্য এটা কাম্য ছিল না। বিশেষত যারা চলে যাচ্ছিলেন তারা মোটামুটি আমারব্লগেই ব্লগিং করতেন। রিলিজিয়াসলি। এদের তৎপরতার দ্বারা আমারব্লগের একটা চেহারা দাঁড়িয়ে যাচ্ছিল। আমারব্লগ নিজের পাটাতন খুঁজে পাচ্ছিল। কিন্তু সেটা অনেকেরই কাম্য নয়, অনুমান করি। তারা মুক্তচিন্তা বা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার নামে আমারব্লগকে ডাম্পিং জোন বানিয়ে মজা দেখতে চান। এসব ধান্দাবাজ হিপোক্রেটদের কথা আমি আমার পোস্টে লিখেছিলাম। বলেছিলাম যে এইসব নিকেরা এখানে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার নামে বড় বড় ভাষণ দেয়, কিন্তু সচলায়তনের পর্দায় ডান্ডাবেড়িসহ অনাবিল অভিনয় করে চলে। প্রশ্ন করেছিলাম এরা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার এত ডাইহার্ড সমর্থক হওয়া সত্বেও সচলায়তনে পড়ে আছে কেন? যেখানে আমারব্লগ তাদের মতপ্রকাশের সর্বোচ্চ স্বাধীনতা নিশ্চিত করার জন্য "নো মডারেশন" পলিসি দিয়ে আপ্যায়ন করছে? বলেছিলাম, "একই লোক এক জায়গায় মডারেটেড হয়ে লিখছে, আবার এখানে এসে মডারেশন ছাড়া লিখছে। মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে তার ব্যক্তিগত কোনো অবস্থান নেই। এরা আসলে ভীষণরকম পজেসিভ, ওয়েবে যতরকম ঠাঁই আছে সবখানেই একটা ফাৎনা ফেলে রাখতে চায়। এদের আমি হিপোক্রেট মনে করি।

এখন দেখা যাচ্ছে, আমার ব্লগের “নো মডারেশন” নীতির সুযোগে এইসব হিপোক্রেসি পার পেয়ে যাচ্ছে। একদিকে আমার ব্লগ মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে উচ্চাসন দিচ্ছে, আবার অন্যদিকে এইসমস্ত হিপোক্রেসিকেও প্রমোট করছে নিজের অজান্তে।"

সম্ভবত এগুলো আমারব্লগ কারিগরদেরও মনের কথা ছিল। আমি "মিনিমাম সেন্সিবল মডারেশন"এর প্রস্তাব দিয়েছিলাম আর সুশান্ত সেটার যৌক্তিকতা যেই খুঁজে পেলেন, আর অমনি নিকনবী হাওয়া! এ যেন ভুতের মুখে রসুন পড়ল! বুঝতে বাকি থাকে না যে, এই নিকনবীর নাটক আমারব্লগে কারা শুরু করেছিল। আমি জানতাম তারা যে কোন মূল্যেই হোক আমারব্লগে মডারেশন চায় না, কারণ মডারেশন চালু হলে তাদের আন্তব্লগীয় রাজনীতি এবং বিকৃত মানসিকতার প্রদর্শন আর কোথায় করবে? ফলে পিশাচ আপাতত দরজার ওপাশে গেল, কিন্তু রসুনের মালা খসে পড়লেই আবার সে ঘাড়ে কামড় দিতে হাজির হবে ঠিক ঠিক।

আমারব্লগ "নো মডারেশন" নীতিতে চললে আমার কোনো সমস্যা নেই। আমি এই ব্লগে লিখিও না তেমন। বরং "নো মডারেশন" নিয়ে ব্লগটি কতদূর যায় সেটা একটা ইন্টারেস্টিং অবজার্ভেশন আমার। কেউ কেউ দেখলাম ব্লগারদের "বিবেকের মডারেশন"কেই সমাধান ভাবছেন। আমি একমত। তবে থিওরেটিক্যালি। যারা ভাবছেন এই ব্লগে সবাই একইরকম খোলা মনোভাব নিয়ে ব্লগিং করতে আসছে তারা ভুল ভাবছেন আমার ধারণা। এখানে নানারকমের আদম আছে, নানান উদ্দেশ্য তাদের। কারো কারো বিবেক আগে থেকেই মডারেটেড, বা প্রিকন্ডিশনড। বিবেকের থিওরি দিয়ে এদের জাগ্রত করা যাবে না।

আমারব্লগ আমি মাঝে মাঝে পড়ি। আমার বিবেচনায়, এই ব্লগে একমাত্র গালাগালি ছাড়া এমন কিছু দেখি নাই যা কোনো মডারেটেড ব্লগে করা সম্ভব নয়। গালাগালিগুলো বাদ দিলে বাদবাকি লেখাগুলো তো প্রথম আলো-র মত সুশীল পত্রিকাতেও ছাপা সম্ভব বলে আমার ধারণা! ফলে আমার ধারণা যারা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ধুয়া তুলছেন তারা ইচ্ছামত গালাগালি করাকেই মতপ্রকাশের স্বাধীনতা বলে ভাবছেন। ফলে, এই প্রেক্ষিতে, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এক শ্রেণীর সাইকোপ্যাথদের যত্রতত্র মাস্টারবেশনের সমার্থক হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাদের মোল্লামার্কা আস্ফালনের তোপে আমারব্লগ তার মডারেশনভাবনা নিয়ে হয়ত ম্রিয়মান হয়ে গেছে। কী আর করা। বিষ্ঠাবহনের দায় থেকে আমারব্লগ নিজেকে মুক্ত করুক, একটা স্বতন্ত্র ব্লগ হয়ে টিকে থাকুক, আপাতত সেটাই চাওয়া।








৬টি মন্তব্য:

Sushanta Das Gupta বলেছেন...

সুমন ভাই, ঐ নিক আছে তো। আপনি মেম্বার লিস্টে দেখবেন সেটা। আর প্রাইভেট পোস্ট ব্লগার নিজে ছাড়া আর কেউ দেখে না। এডমিনরা দেখতে পারে। অলৌকিকের পোস্টে তো সে কমেন্ট ও করেছে।

এখন পর্যন্ত কোন মডারেসন মুক্তই আছে। জানি না কয়দিন রাখা যাবে।

Sushanta Das Gupta বলেছেন...

টেকনিক্যাল মডারেসন করার সম্ভাবনা আছে। যেমন কিছু ইউজার নেইম রেস্ট্রিক্ট করে দেওয়া যেগুলা কখনো নেওয়া যাবে। কিছু শব্দ ফিল্টারে রেখে দেওয়া। ঐ শব্দগুলা যদি কমেন্টে থাকে তাহলে সেগুলা স্পামে জমা হবে। এই টাইপের সেন্সিবোল মডারেসন সাইট এর টেকনিক্যাল স্টাবিলিটির জন্য করা হতেই পারে। তবে কোন ধরনের স্পিচ মডারেসন হবে না আপাতত। এটাই এই মুহুর্তে আমারব্লগের অবস্থান।

মলিকিউল বলেছেন...

এটা ঠিক যে অনেকেই অন্যান্য ব্লগে যা করে, আমারব্লগে করে তার উল্টোটা। নো মডারেশনের সুযোগ নেয়।
নো মডারেশন আসলে খুব ধোয়াশাপুর্ন একটা টার্ম। ঠিক ব্যাখ্যা কি হবে তা আমার কাছ এখনও পরিস্কার না।

আমি আশাবাদী তবুও! স্বাধীনতা পাবার পর প্রথম প্রথম যথেচ্ছাচারীতাই বেশী দেখা যায়। একটা সময় পর একটা অলিখিত নিয়ম দাড়িয়ে যায়। আমারব্লগকে সে সময়টা দিতে হবে।

ওখানে অধিকাংশ ব্লগারই নতুন (আমিও)। সময় লাগবে একটা ফরম্যাটে আসতে, তবে তারা ম্যাচিউরড হলে আমারব্লগ ছাড়বে না, কারন টাইপটা আলাদা এদের। সচল-সামু’র ব্লগারদের মত এরা না। মিলবেও না সেখানে। ওরা আমারব্লগীয় টাইপ। নিজেরা নিজেরা হাজারটা বিষয় নিয়ে কথা বলে ব্যস্ততার ফাকে, অনেক সময় গভীরতা আসার আগেই আলোচনা শেষ হয়ে যায়। তবুও সবাই বড় বড় কমেন্ট দেয়। পুষিয়ে দেয়ার চেষ্টায়।

পথ চলা মাত্র তো শুরু। এখনই কোন সিদ্ধান্ত কি দেয়া যায়!

সুমন রহমান বলেছেন...

হ্যাঁ টেকনিক্যাল মডারেশনই করেন। আমি আসলে সেন্সিবল মডারেশন বলতে তাইই বুঝাচ্ছিলাম। আরেকটা জিনিস ভাবতে পারেন। আমারব্লগের "নো মডারেশন" পলিসি শুধু এই ব্লগের ডেডিকেটেড ব্লগারদের জন্য প্রযোজ্য রাখতে পারেন। অন্যত্র যারা ব্লগায়, মডারেটেড হয়েও, তাদেরকে আপনি "নো মডারেশন" অফার করবেন কেন, বিশেষত যার সুযোগ নিয়ে সে এখানে গালাগালি করতে আসে?

প্রাচীন পাঠক বলেছেন...

প্রিয় সুমন রহমান, বাংলা ব্লগের সাথে আজ অনেক দিন ধরেই। তেমন লিখি না কোথাও,তবে পড়ি মোটামুটি অনেকটুকুই।

গত কয়েকদিনের অস্থিরতার প্রেক্ষিতে, সব ব্লগই ঘুরে ফিরে দেখছিলাম। সবার মতামত পড়লাম, দেখলাম, তবে এর মধ্যেও যেটা সবচেয়ে বেশি চোখে লেগেছে, সেটা হচ্ছে আপনার সচলায়তন প্রেম। আপনি সবকিছুতেই আজকাল সচলায়তন টেনে আনছেন। ব্যাপারটা বেশ মজাদার হয়ে যাচ্ছে। আমার মনে হয় আপনার এই প্রি-ডিসাইডেড একটা মতবাদকে চাপিয়ে দিচ্ছেন।

ভালো থাকুন, আর হ্যা,আপনার এই ব্লগটা সুন্দর হয়েছে।

সুমন রহমান বলেছেন...

প্রাচীন পাঠক, সচলায়তনের প্রতি আমার প্রেমকে আপনার কাছে দৃশ্যমান করতে পেরে আমি গর্বিত। বিষয়টি আমার কাছেও ব্যাপক মজাদার হয়ে উঠছে। তবে প্রেম আমার একতরফা (প্রি-ডিসাইডেড) কি না, তার প্রমাণ আমার লেখাতেই আছে। আপনি সচলায়তন-বিদ্বেষ থেকে একটু দূরে গিয়ে খোলা মন নিয়ে তাকান, দেখতে পাবেন।